টানা একমাস যদি আপনি হ-স্ত’মৈ’থুন না করে শরীরে ‘বী-র্য ধরে রাখেন তাহলে কী হবে, জানলে অবাক হবেন!

শরীরের মধ্যে আমাদের এমন বেশ কিছু ধরনের প্রক্রিয়া চলতে থাকে অনবরত যেগু-লি সম্পর্কে আমরা অবগত নয় । এবং সেই সম্পর্কগুলি না জানার জন্যই শরীরে মাঝে মধ্যে ডেকে অনি প্রচুর পরিমাণে ‘ক্ষ’য়-ক্ষ-তি ।

আমরা যে সমস্ত খাবার খাই সেই সমস্ত খাবার থেকেই তৈরি হয় এমন এক ধরনের জিনিস যা সৃষ্টি করে মানুষকে । আপনারা হয়তো কিছুটা হল আন্দাজ করতে পেরেছেন আমি কি নিয়ে আজকের এই প্রতিবেদন বলতে চলেছি।

পুরান মতে কোন বাড়ির ছেলে ১৩ বছর হলেই তাকে পাঠিয়ে দেওয়া হতো গুরু আশ্রম এ এ । বং সে যতক্ষণ না ২৫ বছর বয়সে তো ততক্ষণ তাকে বাড়ি আসতে দেওয়া হতো না । সেখানে চলছে তার জীবন ধারণ।

এবং ক-ঠোর নিয়ম এর মধ্য দিয়ে এতগু-লো বছর ‘কা’টা-নোর ফলে সে লাভ করত অম-রত্ব অমরত্ব মানে এমনটা নয় যে সশরীরে উপস্থিত থাকা ।

এটার মানে নিজের কাজের মাধ্যমে আপনি চলে যাবার পর আপনি সকলের মধ্যে থেকে যাওয়াকে অমরত্ব বলা হয়।

মনুষ্য প্রজাতির জন্ম হয় প্রধানত বী-র্য থেকে এবং বর্তমান প্রজন্মের ছেলেমেয়েরা অনেকেই অকা-রনে শুধুমাত্র শারী-রিক শান্তির জন্য বা পূর-ণের জন্য অকা-রণে ‘হ-স্ত-মৈ-থু-ন করে ।

এর উপ-কারিতা এবং অপ-কারিতা দুটোই রয়েছে । তবে যদি আপনি দীর্ঘ-দিন ধরে ‘হ-স্তমৈথুন না করেন তাহলে কিন্তু আপনার লাভ এতে । কিভাবে এটি কাজ করে আপনাদেরকে জানাবো বিস্তারিত।

আমরা যে সমস্ত খাবার খায় সেই সমস্ত খাবার থেকে তৈরি হয় ফ্লুইড এবং সেখান থেকে তৈরি হয় ‘র’ক্ত’ । ‘র’ক্ত’ থেকে তৈরি হয় আর হাড় । সেখান থেকে ম-জ্জা ।

এবং ম-জ্জা থেকে তৈরি হয় ‘বী-র্য। বিভিন্ন প্রক্রিয়া মধ্যে ‘বী-র্য উৎপাদন প্রক্রিয়া অন্যতম একটি এবং যদি আপনি একবার আপনার ‘চি’ন্তা ভাবনার মধ্যে ‘যৌ-ন’ প্রক্রিয়া বা সে-ক্সু-য়াল জিনিস আ-বদ্ধ করেন

তাহলে আপনি আপনার চিন্তাধারা থেকে অর্থাৎ আপনার ইন্টেলিজেন্ট থেকে ৪৫ দিন পিছিয়ে যেতে পারেন এমনটা বিভিন্ন গবেষণায় উঠে আসছে ।

তার পাশাপাশি আরো বিভিন্ন ধরনের ক্ষ-তি হতে পারে কাজেই আপনি যদি বহুদিন ধরে ‘হ-স্তমৈ-থুন না করেন তাহলে ৬৫ দিনের পর সেটি ‘র’ক্তের মধ্যে মিশতে শুরু করে যা আপনার শরীরকে অত্যন্ত সুগঠন বানিয়ে তোলে ।

ভিডিও দেখতে ক্লিক করুন