টিকিট পেয়ে খুব খুশি সোহম, আনন্দে আ-ত্মহা-রা হয়ে অনেক কিছুই বলে ফেললেন অভিনেতা, ভাইরাল ভিডিও!

ভোটের গরমে এখন বাংলা উত্তপ্ত । আর মাত্র কয়েকটা দিন তারপর শুরু হবে ভোটযুদ্ধ । ইতিমধ্যে তার প্রস্তুতি তুঙ্গে । বিভিন্ন রাজনৈতিক দলগুলো তাদের আগামী দিনের পরিকল্পনা সবার সামনে তুলে ধরেছেন এবং তার পাশাপাশি পুনরায় মানুষকে বিশ্বাস করার চেষ্টা করছেন তাদের সম্পর্কে ।

ইতিমধ্যে তৃণমূল কংগ্রেস নিজেদের ২৯৪ টি আসনে প্রার্থী তালিকা ঘোষণা করে দিয়েছেন । আর তার পরে গোটা রাজনৈতিক মহলে ছ-ড়িয়েছে উ-ত্তে-জনা। বেশ কিছুদিন আগে নন্দীগ্রামের এর সভা থেকে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছিলেন যে এবারে সেই বিধানসভা থেকে তিনি প্রার্থী হবেন নিজেই ।

নন্দীগ্রাম কে শুভেন্দু অধিকারীর গর বা ঘাঁটি বলা হয়ে থাকে । সেই শুভেন্দু অধিকারীর বিপরীতে দাঁড়াবেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় । আর তারপরেই আশার আলো দেখছে সাধারণ কর্মীরা। আমরা দেখেছি যে ভোটের প্রাক্কালে তৃণমূল কংগ্রেস ছেড়ে অন্য জায়গায় অর্থাৎ বিজেপিতে যোগ দিয়েছে বিভিন্ন নেতা-মন্ত্রীরা ।

তার মধ্যে যেমন জিতেন্দ্র তিওয়ারি শুভেন্দু অধিকারী রাজিব ব্যানার্জি নাম রয়েছে ঠিক তেমনি রয়েছে আরও অনেকে । তবে যারা থেকে গেছেন মাটি আঁকড়ে তাদেরকে যোগ্য সম্মান নিয়ে সম্মানিত করেছে মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায় ।

আবার কখনো কখনো প্রকাশ্যে উঠে এসেছে রাগ-অভিমান । কারণ দলের পুরনো অনেকেই এবারে টিকিট দেওয়া হয়নি । নন্দিগ্রামের পর হচ্ছে চন্ডিপুর । চন্ডিপুর থেকে এবার ভোটে লড়বেন অভিনেতা সোহম চক্রবর্তী ।

তিনি তার পর অর্থাৎ নাম ঘোষণা পর নিজের প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন । তিনি বলেছেন চন্ডিপুরে পাশে হচ্ছে নন্দীগ্রাম এবং সেই নন্দীগ্রামে প্রার্থী হলেন মমতা ব্যানার্জি কাজেই দলনেত্রী কে পাশে পেয়ে তিনি অনেকখানি উত্তেজিত ।

তার পাশাপাশি তারকা হয়ে নয় ঘরের ছেলে হয়ে মাঠে নেমে কাজ করব এবং জিতে দেখাবো । এমনও প্রতিশ্রুতি দেন ওই দিন তিনি । তিনি এটাও বলেন যে দলের বিভিন্ন কাজে আমি বেশ কয়েকদিন পূর্ব মেদিনীপুরে ছিলাম এবং সেখানে মানুষের সাথে কথা বলে বুঝি যে তারা শুভেন্দু নয় বরং মমতা ব্যানার্জীর উন্নয়নের সাথে রয়েছেন ।