বসুরহাটে ‘ক’ঠো’র ‘অ’ব’স্থা’নে ‘পু’লি’শ, কাদের মির্জা পৌরসভা ভবনে

নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জে আওয়ামী লীগের দুই পক্ষের মধ্যে সাতটি ‘সং’ঘ’র্ষে’ এ প্রর্যন্ত ‘সাং’বা’দি’ক সহ দুইজন ‘নি’হ’ত’ হয়েছে।

এদিকে, নোয়াখালীর কোম্পানীগঞ্জের বসুরহাট পৌরসভা ভবন চারপাশ থেকে ঘিরে রেখেছে ‘পু’লি’শ’। ভবনের ভেতর রয়েছেন মেয়র আবদুল কাদের মির্জা। তিনি সেখানেই রাত কাটিয়েছেন। তার সঙ্গে কয়েকজন কর্মীও রয়েছেন।

এর আগে শুক্রবার ভোরে কাদের মির্জাকে ‘গ্রে’প্তা’র’ করা হতে পারে—এমন কথা ছড়িয়ে পড়েছিল পুরো জেলায়। তবে সকাল সাড়ে ১০টা পর্যন্ত সেটি ‘গু’জ’বে’ই’ ‘সী’মা’ব’দ্ধ ছিল।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা গেছে জিরো পয়েন্টে অবস্থিত বঙ্গবন্ধু চত্বর, রুপালী চত্বর, উপজেলা হাসপাতাল গেট, কলেজ গেট ও উত্তর বাজার এলাকায় ‘পু’লি’শ’ ও ‘র‌্যা’বে’র’ সতর্কাবস্থান দেখা গেছে।

এদিকে মঙ্গলবার ‘সং’ঘ’র্ষে’র ‘ঘ’ট’না’য় ‘নি’হ’ত’ আলাউদ্দিনের ছোট ভাই এমদাদ হোসেন ওরফে রাজু বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে কাদের মির্জাকে প্রধান

‘আ’সা’মি’ করে একটি লিখিত ‘অ’ভি’যো’গ নিয়ে ‘থা’না’য়’ যান। কিন্তু এজাহার থেকে প্রধান ‘আ’সা’মি’ কাদের মির্জাকে বাদ দেওয়াসহ কিছু ‘ত্রু’টি’র থাকা কথা বলে ‘পু’লি’শ’ সেটি গ্রহণ করেনি।

উল্লেখ্য, এর আগে স্থানীয় আওয়ামী লীগে বিবদমান কাদের মির্জা ও বাদল-সমর্থিত দুই গ্রুপের ‘দ’ফা’য়’ ‘দ’ফা’য়’ ‘হা’ম’লা’ ‘সং’ঘ’র্ষে’ সাংবাদিকসহ দুজন ‘নি’হ’ত’ হওয়ায় পর ‘দো’ষী’দে’র ছাড় না দিতে নির্দেশ দিয়েছেন সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।