স্কুল-কলেজ ছাড়া কোথাও বাবার নাম নিও না, সন্তানদের উদ্দেশ্যে মাশরাফী

স্কুল-কলেজ ছাড়া কোথাও বাবার নাম নিও না, স’ন্তানদের উদ্দেশ্যে মাশরাফীস’ন্তানদের স’ঙ্গে বন্ধুর মতো সম্প’র্ক মাশরাফীর। নিজেই অনেকবার বলেছেন সে কথা। ছে’লে সাহিল এবং মে’য়ে হু’মায়ারার স’ঙ্গে কা’টানো মুহূর্তগুলোর ছবি মাঝেমধ্যেই সামাজিক মাধ্যমে পোস্ট করেন তিনি।

মঙ্গলবার (৫ জানুয়ারি) দুই স’ন্তানের স’ঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করেছেন ম্যাশ। তবে ছবির স’ঙ্গে লেখা কথাগুলো একেবারেই আলাদা। মূ’লত পুরো পোস্টেই স’ন্তানদের নসিহত করেছেন জাতীয় দলের সাবেক এ অধিনায়ক।পোস্টে তিনি লিখেছেন, অ’তীত যতোই কঠিন বা মসৃণ হোক আবেগাক্রান্ত হয়ো না তা নিয়ে, এমন কি ভবি’ষ্যৎ নিয়েও তোম’রা কিছু ভেবো না বরং তোমাদের বর্তমানের প্রতিটি মুহূর্তকে উপভোগ করো। কারণ, বর্তমানই তোমা’র ভবি’ষ্যৎ।

মাশরাফী আরও লেখেন, বাবা হিসাবে এতোটুকুই চাইবো স্কুল, কলেজ, পাসপোর্ট বা আরও কিছু প্রয়োজনীয় জায়গা ছাড়া বাবার নাম নিও না। কারণ তোমাদের সাবলম্বী করতে সম্ভাব্য যা কিছু প্রয়োজন তা তোমাদের বাবা- মা চেষ্টা করছে। বাকি জীবনটা নিজেদের মতো সাজিও নিও। অবশ্যই চাইবো সেটা যেন সঠিক পথে হয়।হৃদয় দিয়ে লক্ষ লক্ষ হৃদয়ের গল্প জিতবে সেই আশাই করি।আল্লাহ তোমাদের সহায় হোন।সাহেল এবং হু’মায়রার এই ছবিটি পোস্ট করেছেন মাশরাফী এদিকে উইন্ডিজের বিপক্ষে আসন্ন সিরিজের প্রাথমিক দলেও রাখা হয়নি মাশরাফীকে।

এর আগে ২০১১ সালে ফি’টনেস সমস্যার কারণে বিশ্বকাপ খেলতে পারেনি তিনি। আর এবার ফি’ট থেকেও ক্যারিয়ারের প্রথমবারের মতো বাদ পড়লেন ম্যাশ।এর আগে, ২০১৯ বিশ্বকাপে দলের বিপর্যয় আর নিজের নিদারুণ ব্য’র্থতায় প্রেক্ষাপট অনেকটা তৈরি হয়ে গিয়েছিল।তারপরও ল’ড়াই চা’লিয়ে যাওয়ার ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। বোর্ডের কেন্দ্রীয় চুক্তি থেকে স্বেচ্ছায় নিজেকে সরিয়ে নেওয়া, জিম্বাবুয়ে সিরিজ দিয়ে অধিনায়কত্বকে বিদায় জানানো, সবই ছিল ক্রিকেটার হিসেবে দলে জায়গা পাওয়ার ল’ড়াইয়ের অংশ।

ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে সিরিজের দল ঘোষণার আগে বঙ্গবন্ধু টি ২০ কাপ ছিল নিজেকে তুলে ধ’রার একটি সুযোগ। সেই আসরের চার ম্যাচের তিনটিতেই পারফরম্যান্স ভালো ছিল মাশরাফীর। একটিতে ৫ উইকেট নিয়ে হয়ে উঠেছিলেন ম্যাচের নায়ক। কিন্তু তাতেও মন গলেনি নির্বাচকদের।প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু মাশরাফীকে বাদ দেয়ার ব্যাখ্যায় বলেছেন, দলকে নতুনভাবে গুছিয়ে সামনে এগোতে ও ২০২৩ বিশ্বকাপে চোখ রেখে নির্বাচক কমিটি, টিম ম্যানেজমেন্ট সবাই সম্মি’লিতভাবে এই সি’দ্ধান্ত নিয়েছেন।

এ বি’ষয়ে গণমাধ্যমকে মাশরাফী বলেন, এটা পেশাদার জগৎ। তারা সি’দ্ধান্ত নিয়েছেন, আমি পেশাদারিভাবেই নিচ্ছি এটাকে। আর কিছু বলার নেই। আগেও বলেছিলাম, জাতীয় দলে সুযোগ না পেলেও খেলা চা’লিয়ে যাব। এখনও সেটিই বলছি। আপাতত আর কিছু ভাবছি না।আপাতত ঘরোয়া ক্রিকেট শুরুর অ’পেক্ষায় থাকতে হবে বাংলাদেশের সফলতম এই ওয়ানডে অধিনায়ক এবং নড়াইল-২ আসনের এ সং’সদ সদস্যের।