কবরীর যে শেষ ইচ্ছার কথা জানালেন সালওয়া

কান্না থামছে না কবরী পরিচালিত শেষ সিনেমার নায়িকা নিশাত নাওয়ার সালওয়ার। তিনি বলেন, একদম সুস্থ-সবল মানুষটা হুট করে চলে গেলেন-আমি কিছুতেই মানতে পারছি না। কবরী পরিচালিত দ্বিতীয় সিনেমা ‘এই তুমি সেই তুমি’র নায়িকা সালওয়া। অভিনেত্রী বলেন, গত ২৪ মার্চ আপার সঙ্গে ডাবিং করলাম।

কত আড্ডা হলো, আপা সিনেমাটি নিয়ে তার স্বপ্নের কথা বললেন আমাকে। সালওয়া বলেন, ‘এই তুমি সেই তুমি’ সিনেমাটি নিয়ে আপার অনেক স্বপ্ন ছিল। সিনেমাটি বিশ্বের বেশ কয়েকটি চলচ্চিত্র উৎসবে পাঠাবেন বলে আমাকে জানিয়েছিলেন। কিন্তু ওনার শেষ ইচ্ছাটা পূরণ হলো না। গত বছরের মার্চের শুরুতে ‘এই তুমি সেই তুমি’র শুটিং শুরু করেছিলেন কবরী।

মহামারি করোনার কারণে তখন দু’দিনের মাথায় বন্ধ হয়ে যায় সিনেমাটির কাজ। একই বছর ৩ সেপ্টেম্বর কাজ শুরু করে শুটিং সম্পন্ন করেন তিনি। সরকারি অনুদান পাওয়া সিনেমাটিতে জুটি বেঁধে অভিনয় করেছেন রিয়াদ রায়হান ও নিশাত নাওয়ার সালওয়া। বর্তমানে সিনেমাটির ডাবিং চলছিল। করোনা আক্রান্ত হয়ে কিংবদন্তি অভিনেত্রী,

নির্মাতা ও রাজনীতিবিদ সারাহ বেগম কবরী করোনা আক্রন্ত হয়ে ১৩ দিন চিকিৎসাধীন থাকার পর শুক্রবার দিবাগত রাত ১২টা ২০ মিনিটে মারা যান।বর্ণাঢ্য ও সংগ্রামী জীবন তার। চলচ্চিত্র ও রাজনৈতিক জীবনে পেয়েছেন সাফল্য। মাত্র ১৩ বছর বয়সে চলচ্চিত্রে আসেন তিনি। ৩০ বছরে শতাধিক ছবিতে অভিনয় করেছেন কবরী।

১৯৬৪ সালে সুভাষ দত্তের ‘সুতরাং’ ছবির মাধ্যমে সারাহ বেগম কবরীর অভিনয় জীবন শুরু। দক্ষ অভিনয় শৈলী দিয়ে ‘মিষ্টি মেয়ে’ হয়ে ওঠেন এই অভিনেত্রী। তারপর জনপ্রিয় নায়িকা হিসেবে চলচ্চিত্র দুনিয়ায় কবরীর শুধুই দুর্বার গতিতে এগিয়ে চলা। এরপর অভিনয় করেছেন হীরামন, ময়নামতি, চোরাবালি, পারুলের সংসার, বিনিময়সহ অসংখ্য সিনেমায়।

আগন্তুকসহ জহির রায়হানের তৈরি উর্দু ছবি ‘বাহানা’ এবং ভারতের চলচ্চিত্র নির্মাতা ঋত্বিক ঘটকের ছবি ‘তিতাস একটি নদীর নাম’।অভিনেত্রী কবরী পরিচালনায় নাম লিখিয়েছিলেন ২০০৮ সালে। নির্মাণ করেছিলেন ‘আয়না’ নামের সিনেমা। এরপর সর্বশেষ হাত দিয়েছিলেন ‘এই তুমি সেই তুমি’ সিনেমার কাজে।