৭ মাস যাবৎ যুবকের পেটে আস্ত মোবাইল ফোন, চিকিৎসকদের চোখ কপালে!

মানুষের পেটের ভেতর আস্ত একটি মোবাইল ফোন। অবা’ক শোনা গেলেও এটাই সত্যি। গত সাত মাস যাবৎ মোবাইল ফোনটি ছিল এক যুবকের পেটের মধ্যেই। সম্প্রতি যুবকের পেটে করা হয় আ’লট্রাসনো’গ্রাফি। আর সেই রিপো’র্ট আসতেই চিকিৎসকদের চোখ কপালে।

চা’ঞ্চ’ল্যকর ঘ’টনাটি ঘ’টেছে মিসরের রাজধানী কায়রোর একটি হাসপাতালে। জানা যায়, পেটে প্র’বল ব্য’থা নিয়ে ওই হাসপাতালে ভর্তি হন ওই যুবক। হঠাৎ কেন ব্যথা তা কিছুতেই প্রথমে অনুস’ন্ধা’ন করতে পারছিলেন না চিকিৎসকরা। এরপরেই ওই যুবকের পেটে আ’লট্রাসনোগ্রা’ফি করার কথা বলেন ওই হাসপাতালের চিকিৎসকরা। এরপরেই করা হয় আ’লট্রা’সনোগ্রা’ফি।

এরপর রিপো’র্ট দেখে রীতিমত চিকিৎসকরা হ’তবা’ক হয়ে যান। আস্ত একটি মোবাইল ফোন কিনা ২৮ বছরের ওই যুবকটির পেটের ভেতর দেখতে পান তারা। গত সাত মাস ধ’রেই ওটি পেটের মধ্যেই ছিল। সহকর্মীদের সঙ্গে মজা করতে গিয়ে এটি গিলে ফেলেছিল বলে চিকিৎসকদের জানায় যুবকটি। তার ধা’রণা ছিল এটি সে হ’জ’ম করে ফেলতে পারবে।

দক্ষিণ কায়রোর আল ওয়াটান নামে ওই বেসরকারি হাসপাতালের চিকিৎসক ডা. মো. আল জহোর বলেন, প্রথমে টিউ’মার মনে করে অ’স্ত্রো’পচা’রের জন্য আ’ল্ট্রা’সনোগ্রা’ম করা হয়। কিন্তু এতে দেখা যায়, আস্ত একটি মোবাইল ফোনসেট। এরপর তাকে দ্রুত হাসপাতালের জরুরি অ’স্ত্রো’প’চার ইউনিটে স্থা’নান্ত’র করা হয়।