গরমকালে ঘি খাওয়া কি ঠিক হবে?

গরমে ঘি খাওয়া কি ঠিক হবে? এমন প্রশ্নের উত্তরে গবেষণা বলছে গরমেই ঘি শরীরকে ঠিক রাখতে পারে। ঘিয়ে আছে স্বাস্থ্যকর ফ্যাটসহ ভিটামিন এ ও সি। আসুন, জেনে নেওয়া যাক ঘি-বৃত্তান্ত।

অনেকেই হয়ত মোটা হয়ে যাওয়ার ভয়ে ঘি খাওয়া তো দূরের কথা, ঘিয়ের নামও মুখে নেন না। তবে গবেষণায় দেখা গেছে ঘি আয়ুবের্দী চিকিৎসার কাজ করে।

উন্নতমানের ঘি শরীরে ক্ষতিকর ফ্যাট না জমিয়ে বরং দরকারী ফ্যাট জমতে সাহায্য করে। শরীরচর্চার পাশাপাশি নিয়মিত একটু আধটু ঘি খেলে আখেরে শক্তিশালী কোষ তৈরি হবে।

আর্দ্রতা ঠিক রাখে:

ঘিয়ের পুষ্টিগুণ শরীরে হরমোনের ভারসাম্য ঠিক রাখে। একইসঙ্গে এটি আর্দ্রতাও বজায় রাখে। চেহারায় আনে নমনীয়তা। এ জন্য শীতকালের তুলনায় বরং গরমকালেই ঘি বেশি উপকারী। ঘি খেতে মিষ্টি ও এতে চর্বি থাকলে প্রকৃতিগতভাবে ঘি শরীর ঠান্ডা রাখে।

হজমে সাহায্য করে:

অনেকেই গ্যাস্ট্রিক বা হজমের সমস্যা হবে বলে ঘি খান না। কিন্তু খালি পেটে ঘি খেলে বরং হজমশক্তি বাড়ে। কোষ্ঠকাঠিন্যও দূর হয়।

রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায়:

করোনার এ সময়ে এটাই বেশি জরুরি। ঘিয়ে থাকা পুষ্টিগুণ শরীরের দুর্বল কোষকে সতেজ করে তোলে। দুধের যাবতীয় পুষ্টি এতে পাওয়া যায় বলে এটি রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায়।

তথ্যসূত্র: টাইমস অব ইন্ডিয়া।