চুল পড়া কমাতে বেশ কার্যকর পেঁয়াজের তেল, জে’নে নিন তৈরি ও ব্যবহার পদ্ধতি!

চুল পড়া নিয়ে অনেকেই চিন্তিত। ঘন ও লম্বা চুল চান না, এমন মানুষ মেলা ভার। আপনি কি জা’নেন, পেঁয়াজ চুলের জন্য খুবই উপকারী? পেঁয়াজে’র তেলের রয়েছে অনেক গুণ।স্বা’স্থ্য ও জীবনধারাবিষয়ক ওয়েবসাইট বোল্ডস্কাইয়ের প্র’তিবেদনে বলা হয়েছে, পেঁয়াজ চুলের গোড়া শক্ত করে। পেঁয়াজে’র তেল লা’গালে চুলের বৃ’দ্ধি হয়। আসুন, জে’নে নেওয়া যাক পেঁয়াজে’র তেল তৈরির পদ্ধতি।

পেঁয়াজে’র তেল তৈরির পদ্ধতি: পেঁয়াজে’র তেল তৈরি ক’রতে প্রথমে পেঁয়াজে’র রস বের করুন। একটি প্যানে নারকেল তেল ও পেঁয়াজে’র রস একস’ঙ্গে দিন। এরপর ভালোভাবে মেশান। ঠাণ্ডা হওয়ার পর ছাঁকনি দিয়ে ছেঁকে নিন। এই তেল ছয় মাস পর্যন্ত ব্যবহার ক’রতে পারবেন। ব্যবহারের পদ্ধতি: পেঁয়াজে’র তেল লা’গানোর জন্য চুলকে দুই ভাগে ভাগ করুন। এরপর চুলের গোড়ায় তেল লা’গান। হালকাভাবে স্ক্যাল্পে ম্যাসাজ করুন। সঠিক নিয়ম মেনে লা’গালে চুল ঘন ও নরম হয়।

উপকারিতা: পেঁয়াজে’র তেলের চুলকে গ’ভীরভাবে কন্ডিশনিং করে। শুষ্ক চুলের জন্য পেঁয়াজে’র তেল খুবই উপকারী। পেঁয়াজে’র তেল প্রয়োগ করলে চুলের রুক্ষভাব দূ’র হয় এবং চুলের গোড়াও মজবুত হয়। পেঁয়াজে’র তেল প্রয়োগ করে খুশকি দূ’র হয়, চুল পড়াও কমে যায়।নাক ও মুখের ব্লাকহেডস ঘরোয়া উপায়ে দূর করুন

নাক ও মুখের ব্লাকহেডস ঘরোয়া উপায়ে দূর করুন – বেশির ভাগ মানুষই সবচেয়ে বেশি সচেতন নিজের মুখ নিয়ে। মুখের সৌন্দর্য ধরে রাখতে প্রয়োজন নিয়মিত মুখের ত্বকের সঠিক যত্ন নেওয়া। আর মুখের সৌন্দর্যের ক্ষেত্রে একটি বড় সমস্যা হল ব্ল্যাকহেডস। আমাদের অনেকেরই

নাকে ও মুখে ব্ল্যাকহেডস ওঠে। আর এই ব্ল্যাকহেডস নিয়ে দুশ্চিন্তার অন্ত নেই! পার্লারে গিয়ে স্ক্র্যাবিং, ফেসিয়াল, ক্লিনিং— কত কী না করি আমরা! তার পরেও সমস্যা কিন্তু থেকেই যায়। আর এখন তো লকডাউনের জেরে পার্লারে যাওয়ারও উপায় নেই। তবে চিন্তা নেই! ব্ল্যাকহেডস-

এর এই সমস্যা পুরোপুরি দূর করতে আজ জেনে নিন আলুর ব্যবহার। অবাক হচ্ছেন! ত্বকের পরিচর্যায় আলু অত্যন্ত কার্যকরী একটি উপাদান। বিশেষ করে ব্ল্যাকহেডস-এর সমস্যায় এটির কার্যকারীতা অবিশ্বাস্য! চলুন তবে জেনে নেওয়া যাক –

উপকরণ: ১টি মাঝারি মাপের আলু, ১ চামচ অ্যাপেল সাইডার ভিনেগার, পর্যাপ্ত পরিমাণে জল। পদ্ধতি: ১) একটি মাঝারি মাপের আলু ভাল করে ধুয়ে পরিষ্কার করে খোসা ছাড়িয়ে ছোট ছোট টুকরো করে কাটুন। ২) এ বার আলুর টুকরোগুলোকে অ্যাপেল সাইডার ভিনেগারের সঙ্গে মিশিয়ে ভাল করে ব্লেন্ড করুন বা মিহি করে বেটে নিন। ৩) আলু আর অ্যাপেল সাইডার ভিনেগারের মিশ্রণটি সামান্য জল দিয়ে পাতলা করে নিন।

৪) এ বার এই মিশ্রণটি একটি আইস ট্রেতে ঢেলে ডিপ ফ্রিজে ৩-৪ ঘণ্টা রেখে দিন। ৫) ক্লিনজার বা সামান্য উষ্ণ জল দিয়ে মুখ ভাল করে পরিষ্কার করে নিন। আরও পড়ুন: ত্বক আর চুলের স্বাস্থ্য ফেরাতে ব্যবহার করুন চাল ধোয়া জল! জেনে নিন কৌশল ৬) এ বার বরফ হয়ে যাওয়া আলু আর অ্যাপেল সাইডার ভিনেগারের মিশ্রণের টুকরো নিয়ে ত্বকের উপর (বিশেষ করে ব্ল্যাকহেডস আক্রান্ত স্থানে) মালিশ করুন।

৭) দিনে ২-৩ বার এই পদ্ধতিতে আলু আর অ্যাপেল সাইডার ভিনেগারের মিশ্রণটি দিয়ে ত্বকের ব্ল্যাকহেডস আক্রান্ত স্থানে মালিশ করতে পারলে সপ্তাহ দুয়েকের মধ্যেই সমস্যা অনেকটাই নিয়ন্ত্রণে চলে আসবে।

আপনার কাছে পোষ্ট টি কেমন লেগেছে কমেন্টেস করে জানাবেন ৷ আপনাদের কমেন্ট দেখলে আরো ভালো ভালো পোষ্ট দিতে উৎসাহ পাই।