আতঙ্ক এলাকার বাসিন্দারা : নদীতে ভেসে আসছে প্রচুর ম’র’দেহ!

একের পর এক বি’কৃ’ত ম’র’দেহ ভে’সে আসছে ভার’তের গ’ঙ্গা নদী দিয়ে। ই’তো’মধ্যে পাওয়া গেছে ৪০-৪৫টি ম’র’দেহ। এই সংখ্যা ১৫০ এর বে’শিও হতে পারে।এভা’বে মর’দে’হ ভে’সে আসার কারণে বিহা’রের বক্সায় গঙ্গার পার্শ্ব’বর্তী এ’লা’কায় ছড়িয়ে পড়েছে আ’ত’ঙ্ক। ক’রোনায় বিপর্য’স্ত উত্তর প্রদেশের পাশের এলা’কা বিহা’রে এ’ভাবে এত মর’দে’হ ভে’সে আসা নিয়ে সৃ’ষ্টি হয়েছে প্রশ্নের।

এগু’লো কোথা থেকে ভে’সে এসেছে তা নিয়ে অনু’সন্ধা’ন চা’লা’চ্ছে প্রশাসন। রা’জ্যের চৌসা এলাকার স্থানীয় বাসি’ন্দাদের বরাতে জানা যায়, সকালে উঠেই তারা দেখে গঙ্গার পাড়ে ম’হা’দেব ঘা’টে সা’র সা’র দিয়ে জলে ভা’স’ছে পচে গলে ফুলে ওঠা মৃ’ত’দে’হ। মু’হূ’র্তে খবর যায় পু’লিশে।

স্থানীয় প্রশাস’নের প্রাথমিক ধারণা, উত্তর’প্রদেশ থেকেই ভে’সে এসেছে দেহ’গু’লো এবং মৃ’ত’দের মৃ’ত্যু সম্ভবত করোনা সংক্র’ম’ণের কারণেই হয়েছে। সৎ’কা’র করতে না পেরে মা’রা যাওয়া লো’কদের প’রিবার নদী’তেই ভা’সিয়ে দিয়েছে ম’র’দেহ’গু’লো।

করো’না’কালে এভা’বে ম’র’দেহ ভে’সে আসায় নদীর পানিতেও সং’ক্রমণ ছড়া’নোর আ’শ’ঙ্কা তৈরি হয়েছে। ভা’রতের চৌসা জেলার কর্মকর্তা অ’শো’ক কুমার বলেন, এদিন সকালে ৪০-৫০টি মৃ’ত’দেহ ভে’সে এসেছে গঙ্গায়।মৃ’তদে’হের অব’স্থা দেখে মনে করা হচ্ছে পাঁ’চ থেকে সাত দিন আগেই এদের মৃ’ত্যু হয়েছে। প্রাথমিক অনুমান, মৃ’ত্যু’র পর কেউ দে’হ’গুলো গ’ঙ্গায় ছুঁ’ড়ে ফেলে দিয়েছে।

তবে এখানেই শেষ নয়, আরও মৃ’ত’দেহ ভে’সে আসার স’ম্ভাবনা রয়েছে। কম করে ১০০-এর ‘কাছাকাছি লা’শ নদী’তে ফেলা হয়েছে বলে অনুমান। এভাবে ক্র’মশ করোনায় মারা যাওয়াদের ন’দীতে ভাসি’য়ে দেওয়া’য় দ্রু’ত সংক্রমণ ছ’ড়ানোর আ’ত’ঙ্কে তটস্থ বাসি’ন্দা’রা। তবে এগুলো উ’দ্ধার করে মাটিতে পুঁ’তে ফেলার সি’দ্ধান্ত নিয়েছে স্থানীয় প্র’শাসন। সূত্র: এই সময়, এনডিটিভি।