দক্ষিণ ভারতীয় তারকাদের ঈদের শুভেচ্ছা

রাত পেরোলেই ঈদ! ঈদকার্ডের যুগ চলে গেছে। সেই জায়গা দখল করেছে নিয়েছে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম। সবাই ফেসবুক, টুইটার, ইনস্টাগ্রামে ঈদের শুভেচ্ছা বিনিময় করছেন। ইতিমধ্যে দক্ষিণ ভারতীয় তারকারা তাঁদের ভক্তদের ইনস্টাগ্রাম, টুইটার ও ফেসবুকে জানিয়েছেন ‘ঈদ মোবারক’।

দক্ষিণ ভারতীয় তারকা দুলকার সালমান, ফাহাদ ফাজিল, নাজরিয়া নাজিম, মেহরিন পীরজাদা, পৃথ্বীরাজ সুকুমারানসহ অনেক তারকা সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে ভক্তদের ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। মালয়ালম তারকা মামুত্তির ছেলে তরুণ অভিনেতা দুলকার সালমান ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে ভক্তদের জানিয়েছেন ‘ঈদ মোবারক’।

করোনার সংক্রমণে ভারতে বেহাল। তাই এবারের ঈদ ঘরে বসেই উদ্‌যাপন করবেন দুলকার। ঈদে বিরিয়ানি খাওয়া ও মসজিদে গিয়ে ঈদের নামাজে অংশ নেওয়া দুলকারের অন্যতম কাজ। এবার হয়তো শুধু নামাজ পড়া হবে, বন্ধু বা আত্মীয়স্বজনের সঙ্গে বাইরে আড্ডা দেওয়া হবে না। ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে তিনি লিখেছেন, ‘স্টে হোম, স্টে সেফ।’ নিজের স্ত্রী ও সন্তানের সঙ্গে একটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘আমাদের পক্ষ থেক ঈদ মোবারক।

মালয়ালম সিনেমার তরুণ অভিনেত্রী নাজরিয়া নাজিম। তাঁর স্বামী আরেক অভিনেতা ফাহাদ ফাজিল। নাজরিয়া স্বামী ফাহাদের সঙ্গে একটি ছবি ইনস্টাগ্রামে পোস্ট করে ঈদের শুভেচ্ছা জানিয়েছেন। লিখেছেন, ‘সবাইকে ঈদ মোবারক। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন।

অভিনেতা পৃথ্বীরাজ সুকুমারানও ঈদের শুভেচ্ছাবার্তা জানিয়েছেন ভক্তদের। অভিনেত্রী মেহরিন পীরজাদা ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘সবাইকে ঈদ মোবারক। সবাইকে সৃষ্টিকর্তা সুখী ও সুস্থ রাখুক। ঈদ সঠিক পথে চলা এবং ত্যাগের মহিমায় উদ্ভাসিত। আমি সব প্রথম সারির করোনাযোদ্ধাকে ধন্যবাদ জানাই, যাঁরা করোনা থেকে আমাদের মুক্ত করতে ত্যাগের দৃষ্টান্ত উপস্থাপন করেছেন। পাশাপাশি প্রার্থনা করছি, ভারত, ফিলিস্তিন, ইয়েমেন, সিরিয়া ও অন্যান্য দেশে যে মানবতা ভুলুণ্ঠিত হচ্ছে, এসব বন্ধ হোক।

অভিনেতা ফাহাদ ফাজিল পোস্ট করেছেন পাজামা–পাঞ্জাবি ও টুপি পরা একটি ছবি। ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘ঈদ মোবারক। ঘরে থাকুন, সুস্থ থাকুন।’ অভিনেত্রী রাই লক্ষ্মীও ভক্তদের ঈদ মোবারক জানিয়েছেন। তিনি হিজাব পরা কয়েকটি ছবি পোস্ট করে লিখেছেন, ‘ঈদ মোবারক। সৃষ্টিকর্তা সবার সহায় হোন।

শুক্রবার ঈদ। ব্যক্তিগত ও পারিবারিকভাবে ঈদ উদ্‌যাপনের আহ্বান জানিয়েছেন তারকারা। ভক্তদের তাঁরা অনুরোধ জানিয়েছেন, সবাই যেন স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঈদ উদ্‌যাপনে শামিল হন, ঘরে থাকেন, নিজেদের নিরাপদ রাখেন।