বা’ন্ধবীর সঙ্গে অ’ন্তর’ঙ্গ মু’হূর্তে স্বামীকে হা’তেনা’তে ধর’তে গিয়ে আ’ক্রা’ন্ত যুবতী

স্বামী যোগা’যোগ রাখা বন্ধ করে দি’য়েছি’লেন আচ’মকাই। স্ত্রী’ খোঁজ নিয়ে জা’নতে পারেন, নিজের ছোটবে’লার এক বা’ন্ধবীর সঙ্গে আলা’দা বাড়ি ভা’ড়া নিয়ে থা’কতে শুরু করেছেন স্বামী। স্বামীকে হা’তেনা’তে ধর’তে গিয়ে আ’ক্রা’ন্ত হলেন এক যুবতী। স্বামী ও তাঁর প্রে’মিকা তাঁকে মা’রধ’র করে’ছে বলে অ’ভিযোগ।

বছর ছ’য়েক আগে কলকাতার শোভা’বা’জারের বাসিন্দা শু’ভ’ঙ্কর দের সঙ্গে বিয়ে হয় গড়ি’য়ার বাসি’ন্দা মিঠুর। তাঁ’দের এক ছে’লেও রয়েছে। মিঠুর বয়ান অ’নুযায়ী, শেষ তিন মাস ধরে শু’ভ’ঙ্কর তাঁর স’ঙ্গে কোনও যোগা”গ রাখ’ছিলেন না।

মিঠু তখন প্রতি’বেশী ও বন্ধুবা’ন্ধবে’র থেকে খোঁ’জ নিয়ে জানতে পারেন, শু’ভঙ্ক’র পাটুলিতে অন্য এক ত’রুণীর সঙ্গে ঘর ভা’ড়া নিয়ে থাকছেন। ওই তরুণী’র নাম শুভমিতা দে।

খবর পেয়ে বুধবার মধ্য’রাতে পাটু”লি’র ওই ভাড়া বা’ড়িতে হানা দেন মিঠু। অ’ভিযো’গ, তাঁদের আ’পত্তি’কর অব’স্থায় ধরে ফেলে’ন তিনি। বি’বাহ ব’র্ভূত স’ম্প’র্কের প্রতিবাদ করায় মিঠু’কে শুভ’মিতা ও শু’ভঙ্ক’র মা’র’ধ’র করে বলে অ’ভিযোগ।
স্ত্রী

পরে মিঠুর আ’র্ত’নাদ শু’নতে পে’য়ে স্থানী’য়রা ছু’টে যান। মি’ঠুকে উ’দ্ধার করেন। পা’শাপাশি শু’ভ’ঙ্কর ও ‘শুভ’মি’তাকে মা’রধ’র করে পু’লি’শের হাতে তুলে দেন। পু’লিশ ওই দুজ’কে গ্রে’ফতার করেছে।