প্রেমিকা নিয়ে সময় কাটানোর সময় স্ত্রী হাজির, পালাতে গিয়ে প্রাণ গেল নেইমারের বন্ধুর

না ফেরার দেশে চলে গেছেন ব্রাজিলীয় তারকা নেইমারের খুব ঘনিষ্ট বন্ধু সংগীতশিল্পী ম্যাক কেভিন। ব্রাজিলের রিও ডি জেনিরোর একটি হোটেলে ৫ম তলার ব্যালকনি থেকে পড়ে প্রাণ হারান তিনি। পুরো নাম কেভিন নাসচিমেন্তো বুয়েনো হলেও ম্যাক কেভিন নামেই পরিচিত ছিলেন তিনি। মডেল প্রেমিকা বিয়াঙ্কা ডোমিঙ্গেজকে নিয়ে একান্তে সময় কাটাতে চেয়েছিলেনি এই ডিজে। কিন্তু সেখানে গিয়ে উপস্থিত হয়ে যান কেভিনের স্ত্রী দেওলান বেজেরা।

এ সময় স্ত্রীর কাছ থেকে বাঁচতে হোটলের ৫ম তলার ব্যালকনি থেকে লাফ দেন কেভিন। নিচে ছিল সুইমিং পুল। কেভিন ভেবেছিলেন পুলের পানিতে গিয়ে পড়বেন, এরপর পালিয়ে যাবেন। কিন্তু হিসেবে ভুল হয়ে যায় কেভিনের। পানিতে না পড়ে তিনি গিয়ে পড়লেন কনক্রিটের দেয়াল এবং মেঝের ওপর। গুরুতর আহত অবস্থায় তাকে নিয়ে যাওয়া হয় হাসপাতালে। সেখানেই মৃত্যুর কোলে ঢলে পড়েন তিনি।

ব্রাজিলের পত্রিকা ফোলহা ডি সাও পাওলো জানিয়েছে, ‘সুইমিং পুল লক্ষ্য করেই লাফ দিয়েছিলেন ২৩ বছর বয়সী কেভিন। কিন্তু দুরত্বের হিসেবে ভুল হয় তার। ফলে গিয়ে পড়েন পুলের পাশে কনক্রিটের মেঝের ওপর।’

ব্রাজিলের আরো একটি পত্রিকা ও গ্লোবো জানায়, কেভিনের এমন মৃত্যুর কারণ খুঁজতে গিয়ে পুলিশ যা আবিস্কার করেছে তা অনেকের কাছে রসাত্মক একটি বিষয়ে পরিণত হয়েছে। যদিও তার পরিণতিটা হলো খুবই দুঃখজনক। এদিকে পুলিশ জানাচ্ছে, ওই হোটেলটির ৫০২ নম্বর রুমে মডেল প্রেমিকা বিয়াঙ্কা ডোমিঙ্গেজকে নিয়ে একান্তে সময় কাটাচ্ছিলেন মেক কেভিন।

তাদের দু’জনের মধ্যে যৌন সম্পর্কও ছিল কিংবা যৌন সম্পর্করত অবস্থায় ছিলেন। এমন সময় সেখানে হাজির হন কেভিনের স্ত্রী দেওলান বেজেরা। স্ত্রীর কাছে ধরা পড়ে যাওয়ার ভয়ে পালানোর চেষ্টা করেন কেভিন এবং ৫ম তলার বেলকনি থেকে নিচে লাফ দেন। তার চেষ্টা ছিল সুইমিং পুলের পানিতে পড়া। কিন্তু তা আর হলো না কেভিনের।

মাত্র দুই সপ্তাহ আগে মেক্সিকান ক্রিমিনাল আইনজীবী দেওলান বেজেরাকে বিয়ে করেন ম্যাক কেভিন। বিয়ের পরও তার পুরনো সম্পর্ক ভুলতে পারেননি এবং অনেকটা স্ত্রীকে ফাঁকি দিয়েই মডেল প্রেমিকাকে নিয়ে গিয়েছিলেন হোটেলে। যার পরিণতি তার মৃত্যুই ডেকে এনেছে।

ডিজে শিল্পী কেভিন ছিলেন নেইমারের খুব ঘনিষ্ট বন্ধু। বন্ধু হারানোর শোকে পাথর নেইমার। ম্যাক কেভিনের মারা যাওয়ার খবর শোনার পর ইনস্টাগ্রামে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন আবেগাপ্লুত নেইমার। ম্যাক কেভিনের ছোট একটি ভিডিও ক্লিপ দিয়ে নেইমার সেখানে লিখেছেন, ‘আমি এটা বিশ্বাসই করতে পারছি না। তার বয়স মাত্র ২৩ বছর ছিল। বুঝতে পারছি না কী বলব। বন্ধু, তুমি আমাকে যে ভালোবাসা দিয়েছ, এর জন্য কৃতজ্ঞ থাকব।’