সারা দেশে ৯১ প্রতিষ্ঠানকে জরিমানা

পেঁয়াজ, চালসহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্যের পাইকারি ও খুচরা বাজারে ভোক্তা অধিদপ্তরের অভিযান। এসময় পণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা, মূল্য তালিকার সাথে বিক্রয় রশিদের গরমিল, মেয়াদ উত্তীর্ণ ওষুধ ও পণ্য, নকল পণ্য এবং ওজনে কারচুপিসহ ভোক্তাস্বার্থ বিরোধী বিভিন্ন অপরাধে সারাদেশ ৯১টি প্রতিষ্ঠানকে ২,৭৭,৮০০/- টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়।

রোববার (২৭ সেপ্টেম্বর) মাননীয় বাণিজ্যমন্ত্রী জনাব টিপু মুনশি এমপি এর সার্বিক নির্দেশনায় ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সম্মানিত সচিব ড. মো. জাফর উদ্দীন এর পরামর্শ এবং জাতীয় ভোক্তা-অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কর্তৃক প্রদত্ত ক্ষমতাবলে ঢাকা মহানগরীর কাওরানবাজার, হাতিরপুল বাজার , মোহাম্মদপুর টাউনহল বাজার, কৃষি মার্কেট বাজার ও শিয়া মসজিদ বাজারে এ অভিযান পরিচালনা করেন প্রধান কার্যালয়ের উপ-পরিচালক মো. মাসুম আরেফিন, ঢাকা জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক আব্দুল জব্বার মন্ডল,ঢাকা বিভাগীয় কার্যালয়ের সহকারী পরিচালক মাগফুর রহমান ।

এছাড়াও ঢাকার বাইরে বিভাগীয় কার্যালয়ের উপপরিচালক ও জেলা কার্যালয়ের সহকারী পরিচালকের নেতৃত্বে বিভিন্ন বাজারে তদারকি ও সচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করে।

তদারকিকালে পেঁয়াজ, আদা,আলু ও চালসহ অন্যান্য নিত্য প্রয়োজনীয় পণ্য যৌক্তিক মূল্যে বিক্রয় হচ্ছে কিনা তা মনিটরিং করা হয়। এছাড়া পণ্যের মূল্য তালিকা প্রদর্শন না করা, মূল্য তালিকার সাথে বিক্রয় রশিদের গরমিল, মেয়াদ উত্তীর্ণ ঔষধ ও পণ্য, নকল পণ্য এবং ওজনে কারচুপিসহ ভোক্তাস্বার্থ বিরোধী বিভিন্ন অপরাধে সারাদেশ ৯১টি প্রতিষ্ঠানকে ২,৭৭,৮০০/- টাকা জরিমানা আরোপ ও আদায় করা হয়।

তদারকিকালে চাল ও পেঁয়াজের মূল্য কারসাজি না করার জন্য ব্যবসায়ীদের সতর্ক করা হয়। সেই সাথে অযথা আতঙ্কিত হয়ে প্রয়োজনের অতিরিক্ত পেঁয়াজ ক্রয় না করার জন্য ভোক্তাসাধারণকে অনুরোধ করা হয়। এছাড়া টিসিবি কতৃক ন্যায্যমূল্যের পণ্য বিক্রয় কার্যক্রম (ট্রাক সেল) তদারকি করা হয়।

অধিদপ্তরের মহাপরিচালক জনাব বাবলু কুমার সাহা বলেন, পাইকারি ও খুচরা পর্যায়ের সকল ব্যবসায়ীকে অবশ্যই পেঁয়াজ, চালসহ অন্যান্য নিত্যপ্রয়োজনীয় পণ্যের ক্রয়-বিক্রয়ের রসিদ এবং মূল্য তালিকা সংরক্ষণ ও প্রদর্শন করতে হবে।

ভোক্তা স্বার্থ সংরক্ষণে দেশব্যাপী অধিদপ্তরের অভিযান চলছে এবং এ ধারা অব্যাহত থাকবে বলে জানান তিনি।