শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটে উভয়মুখী যাত্রী, যানবাহনের চাপ

সাপ্তাহিক ছুটিতে অনেকে যাচ্ছেন গ্রামের বাড়িতে আবার ঈদ উদযাপন শেষে দক্ষিনবঙ্গের অনেক মানুষ এখনো ফিরেছে ঢাকার কর্মস্থলে। এতে শুক্রবার (২১ মে) সকাল থেকে উভয়মুখী যাত্রী ও যানবাহনের উপচেপড়া চাপ পরেছে শিমুলিয়া-বাংলাবাজার নৌরুটের ফেরিতে। সকাল থেকে যাত্রীদের বাড়তি চাপে ফেরিতে যানবাহন পার করা হচ্ছে সীমিত। ফলে দুইঘাটেই যানবাহন পারাপারে অপেক্ষা করতে হচ্ছে দীর্ঘক্ষণ।

মুন্সিগঞ্জের শিমুলিয়াঘাটে বর্তমানে পারাপারের অপেক্ষা রয়েছে ৫শতাধিক ব্যাক্তিগত ও পন্যবাহী যানবাহন। এসব যাত্রী ও যানবাহন পারাপারে এ নৌরুটে আজ ১৮টি ফেরি সচল রয়েছে বলে জানান বিআইডাব্লিউটিসি কর্তৃপক্ষ।

এদিকে লকডাউনে গনপরিবহন সংকটে শিমুলিয়াঘাটে আসা যাত্রীদের ঢাকার গন্তব্যে পৌছাতে হচ্ছে মোটরসাইকেল, সিএনজি সহ ছোট যানবাহনে ভেঙে ভেঙে। এতে ভোগান্তি আর বাড়তি ভাড়া গুনার সমস্যা পোহাতে হচ্ছে যাত্রীদের।

শিমুলিয়া ফেরিঘাটের সহকারী ব্যবস্থাপক (বানিজ্য) ফয়সাল আহমেদ জানান, আজ দুইঘাটে উভয়মুখীযাত্রীদের চাপ রয়েছে। পাশাপাশি প্রচুর সংখ্যাক যানবাহনও রয়েছে। শিমুলিয়াঘাটে যাত্রীবাহী ৩শতাধিক ও পন্যবাহী ২শতাধিক যানবাহন পারাপারের অপেক্ষায় রয়েছে। নৌরুটে ছোট বড় মিলিয়ে সচল ১৮টি ফেরিতে পর্যায়ক্রমে যাত্রী ও যানবাহন পার করা হচ্ছে।