প্রিয়াঙ্কা দিলেন ২৫ কোটি

ভারতে করোনার দ্বিতীয় ঢেউয়ে সংক্রমণ চলছেই। ভারতের সাধারণ মানুষের অসহায়ত্ব দেখে এগিয়ে এসেছেন প্রিয়াঙ্কা চোপড়া আর তাঁর সংগীত তারকা জীবনসঙ্গী নিক জোনাস। নানাভাবে করোনায় আক্রান্তদের পাশে দাঁড়াচ্ছেন এই দম্পতি।

মহামারির এই সময় দেশের মানুষের পাশে দাঁড়ানোর জন্য ত্রাণ তহবিল গঠন করেছেন তাঁরা। এই তহবিলে শুধু বলিউড তারকা নন, হলিউড তারকারাও সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন। মানুষের স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া পেয়ে প্রিয়াঙ্কা চোপড়া ১ মিলিয়নের জায়গায় ৩ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ২৫ কোটি ৫৩ লাখ টাকা সংগ্রহ করেছেন, যা অচিরেই চলে যাবে ভারতে, ব্যয় হবে করোনা মোকাবিলায়।

প্রিয়াঙ্কা ইনস্টাগ্রামে লিখেছেন, ‘বিশ্বের সবচেয়ে অন্ধকার সময়ে মানুষের মানবিক দিকটি উন্মোচিত হলো। বোঝা গেল, আমরা একসঙ্গে শক্তিশালী। আমরা শুরুতে এক মিলিয়ন মার্কিন ডলারের লক্ষ্যমাত্রা নিয়ে তহবিল খুলি। সবার স্বতঃস্ফূর্ত সাড়া পেয়ে আমরা তা সহজেই পূরণ করে ফেলেছি। আমরা এখন আমাদের লক্ষ্য তিন মিলিয়ন মার্কিন ডলারে নিয়ে গেছি।’

বিয়ের পর মার্কিন মুলুকে পাড়ি জমালেও দেশের বিপর্যয়ে নানাভাবে পাশে দাঁড়ানোর চেষ্টা করেছেন প্রিয়াঙ্কা। সামাজিক যোগাযোগমাধ্যমে প্রিয়াঙ্কা তাঁর তহবিলের লিংক শেয়ার করেছিলেন। বলিউড ও হলিউড অভিনেতারা এই তহবিলে আর্থিক সাহায্য করেছেন। প্রিয়াঙ্কা অর্থ সংগ্রহের জন্য ‘গিভ ইন্ডিয়া’র সঙ্গে হাত মিলিয়েছেন। এখন পর্যন্ত তিনি ২৫ কোটি ৫৩ লাখ টাকা সংগ্রহ করেছেন বলে জানিয়েছেন। শুধু তা–ই নয়, প্রিয়াঙ্কা চিকিৎসাসংক্রান্ত নানা সামগ্রী সাধারণ মানুষের কাছে পৌঁছানোর ব্যবস্থা করছেন।

ইনস্টাগ্রাম স্টোরিতে প্রিয়াঙ্কা লিখেছেন, ‘এখন আমাদের তহবিলে টাকার পাশাপাশি ৫০০ অক্সিজেন কনসেনট্রেটর আর ৪২২টি অক্সিজেন সিলিন্ডার আছে। এর মাধ্যমে আড়াই হাজার মানুষ অক্সিজেনের সুবিধা পাবেন। আর ১০টি টিকা কেন্দ্রের স্বাস্থ্যকর্মীদের জন্য ফান্ডের ব্যবস্থা হয়ে গেছে। এই কেন্দ্রগুলোর মাধ্যমে ৬ হাজার মানুষকে টিকা দেওয়া সম্ভব।’

যাঁরা তাঁর ফান্ডে অর্থ দিয়েছেন, তাঁদের সবাইকে ধন্যবাদ জানিয়ে প্রিয়াঙ্কা লেখেন, ‘আপনাদের সহায়তার জন্য ধন্যবাদ, কৃতজ্ঞতা। আমরা প্রায় ২৫ কোটি ৫৩ লাখ টাকার ফান্ড সংগ্রহ করতে সফল হয়েছি।’ প্রিয়াঙ্কার এই তহবিলে কার্তিক আরিয়ান দিয়েছেন পাঁচ লাখ রুপি। এদিকে হলিউড তারকা হিউ জ্যাকম্যান, রিচার্ড ম্যাডেন, রিজ উইদারস্পুনের মতো তারকারা প্রিয়াঙ্কার তহবিলে আর্থিক সাহায্যের হাত বাড়িয়ে দিয়েছেন।