মাহির ডিভোর্সের ঘোষণা ফেসবুকেই দেখলেন স্বামী, যা বললেন

অনেকদিনের বিচ্ছেদের গুঞ্জন শেষে ফেসবুকে চূড়ান্তভাবেই সংসার ভাঙার ঘোষণা দিলেন চিত্রনায়িকা মাহিয়া মাহি। তবে ঘোষণাটি ফেসবুকেই প্রথম দেখেছেন বলে জানিয়েছেন তার স্বামী পারভেজ মাহমুদ অপু।

শনিবার (২২ মে) রাত একটার দিকে মাহি তার ফেসবুক পোস্টে ডিভোর্সের ইঙ্গিত দিয়ে জানিয়েছেন, ‘এই পৃথিবীর সবচেয়ে ভালো মানুষটার সাথে থাকতে না পারাটা অনেক বড় ব্যর্থতা। ’

শ্বশুরবাড়ির প্রসঙ্গ টেনে তিনি লিখেছেন, ‘পৃথিবীর শ্রেষ্ঠ শ্বশুর বাড়ির মানুষগুলোকে আর কাছ থেকে না দেখতে পাওয়াটা, বাবার মুখ থেকে মা জননী, বড় বাবার মুখ থেকে সুনাম শোনার অধিকার হারিয়ে ফেলাটা সবচেয়ে বড় অপারগতা। ’

শ্বশুর বাড়ির লোকদের কাছে ক্ষমা চেয়ে মাহি লিখেছেন, ‘আমাকে মাফ করে দিও। তোমরা ভালো থেকো। আমি তোমাদের আজীবন মিস করবো। ’তবে ঠিক কি কারণে সংসার টিকলো না তা স্পষ্ট করে জানাননি মাহি। শুধু জানিয়েছেন, স্বামীর সঙ্গে দাম্পত্য জীবনের ইতি টানছেন। মাহি বলেন, এর বেশি কিছু জানাতে চাই না।

এ প্রসঙ্গে তাৎক্ষণিক প্রতিক্রিয়া জানিয়ে পারভেজ মাহমুদ অপু গণমাধ্যমকে জানান, তিনিও এ ঘোষণা ফেসবুকে দেখেছেন। এ বিষয়ে মাহির সঙ্গে তার কথা হয়েছে। তার সঙ্গে বিস্তারিত কথা বলে তার বক্তব্য পরে জানাবেন অপু।

২০১৬ সালের ২৪ মে মাহিয়া মাহির বিয়ে হয় সিলেটের মাহমুদ পারভেজ অপুর সঙ্গে। দুই পরিবারের সম্মতি থাকলেও হুট করে বিয়ে হয়। তবে দাম্পত্য জীবনের পাঁচ বছরের মাথায় মাহি তার বৈবাহিক সম্পর্ক ছিন্ন করলেন।