আগামীকাল থেকে চালু হচ্ছে ট্রেন, টিকেট যেভাবে কাটবেন

আগামীকাল (২৪ মে) সোমবার থেকে নতুন করে বিধিনিষেধের মেয়াদ বাড়লেও স্বাস্থ্যবিধি মেনে অর্ধেক যাত্রী নিয়ে চলবে ট্রেন। এক আসন ফাঁকা রেখে এবং ৫০% টিকিট বিক্রি হবে। তবে কাউন্টারে কোনো টিকিট পাওয়া যাবে না। সব টিকিট বিক্রি হবে অনলাইনে। রোববার (২৩ মে) রেলমন্ত্রী নুরুল ইসলাম সুজন রেল ভবনে বাংলাদেশ রেলওয়ের ‘মধুখালী হতে কামারখালী হয়ে মাগুরা শহর পর্যন্ত নতুন রেললাইন নির্মাণ প্রকল্পের চুক্তি স্বাক্ষর’ অনুষ্ঠানে এ কথা বলেন।

নুরুল ইসলাম সুজন বলেন, বর্তমানে আমাদের ১০৮টি আন্তঃনগর ট্রেন রয়েছে। এর মধ্যে ২৮ জোড়া তথা ৫৬টি ট্রেন চালাবো। টিকিট অনলাইন থেকে সংগ্রহ করতে হবে। সংক্রমণের কারণে কাউন্টারে কোনো টিকিট রাখা হয়নি। এছাড়া ১৮টি কমিউটার ট্রেন চালানো হবে।

এদিকে ট্রেন চলাচলের ঘোষণা আসার পর যাত্রী পরিবহনে প্রস্তুতি নিতে শুরু করেছে বাংলাদেশ রেলওয়ে। সরকারি নির্দেশনা আসা মাত্রই রেলওয়ে ট্রেনে যাত্রী পরিবহন শুরু করবে। তার আগে রেলপথের বিভিন্ন সেকশনে যাত্রীবাহী ট্রেন পরীক্ষামূলকভাবে (ট্রায়াল রান) পরিচালনা করা হচ্ছে।

বাংলাদেশ রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাপরিচালক (পরিচালন) শাহাদাত আলী সরদার জানান, করোনা সংক্রমণ পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে সরকারি বিধিনিষেধ জারির পর গত ৫ এপ্রিল থেকে যাত্রীবাহী ট্রেন বন্ধ রয়েছে। কিন্তু আমাদের প্রস্তুতি আছে যেকোনো সময় যাত্রীবাহী ট্রেন যাত্রীসহ পরিচালনার জন্য। এরই অংশ হিসেবে ট্রেনগুলোর ট্রায়াল রান করা হচ্ছে নিয়মিত। নির্দেশনা পেলেই আমরা যেকোন সময় ট্রেনে যাত্রী পরিবহন শুরু করতে পারবো।

বাংলাদেশ রেলওয়ের তথ্যানুসারে, রোববার রেলপথের বিভিন্ন অংশে যাত্রীবাহী ট্রেন পরিচালনা করা হবে। পাকশী বিভাগের অধীনেই ১৯টি ট্রেনের ট্রায়াল রান পরিচালনা করা হবে। এর মধ্যে সুন্দরবন এক্সপ্রেস, চিত্রা এক্সপ্রেস, কপোতাক্ষ এক্সপ্রেস, রূপসা এক্সপ্রেস খুলনা-নওয়াপাড়া–খুলনা রেলপথে পরিচালনা করা হবে। বেনাপোল এক্সপ্রেস খুলনা-বেনাপোল-খুলনা রুটে পরিচালনা করা হবে। রাজশাহী-পোরাদহ রেলপথে চালানো হবে ধূমকেতু এক্সপ্রেস, সিল্কসিটি এক্সপ্রেস, বনলতা এক্সপ্রেস, তিতুমীর এক্সপ্রেস, মধুমতি এক্সপ্রেস, সাগরদাঁড়ি এক্সপ্রেস।

অপরদিকে নীলসাগর, সীমান্ত ও বরেন্দ্র এক্সপ্রেস পরিচালনা করা হবে চিলাহাটি–নীলফামারী রেলপথে। এছাড়া বাংলাবান্ধা এক্সপ্রেস ট্রেনটি পরিচালনা করা হবে বীর মুক্তিযোদ্ধা সিরাজুল ইসলাম রেলস্টেশন থেকে রুহিয়া রেলপথে। টুঙ্গিপাড়া এক্সপ্রেস টুঙ্গিপাড়া-আব্দুল্লাহপুর রুটে চালানো হবে। ঢালারচর এক্সপ্রেস, সিরাজগঞ্জ এক্সপ্রেস ও রাজশাহী কমিউটার ঈশ্বরদী-আব্দুল্লাহপুর রুটে চালানো হবে।